1. formanhbutex062@gmail.com : BUTEXJA :
  2. apiislam52@gmail.com : Textile Mirror :
বৃহস্পতিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৩:৫১ অপরাহ্ন

পাচঁ দফা দাবিতে বুটেক্স অধিভুক্ত সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

  • আপডেট : বুধবার, ২৬ জানুয়ারী, ২০২২
  • ২৩৭ বার পড়া হয়েছে

প্রতিবেদকঃ ইমতিয়াজুল ইসলাম
সেশনজট নিরসন ও দ্রুত পরীক্ষা সহ পাচঁ দফা দাবিতে বুটেক্স অধিভুক্ত সকল সরকারি টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের শিক্ষার্থীরা একযোগে মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূূচী পালন করেছে।

বুটেক্স অধিভুক্ত পাবনা টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের সাধারণ শিক্ষার্থীরা এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে তাদের অবস্থান কর্মসূচীর কারণ এবং দাবিসমূহ তুলে ধরেন।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিত তারা বলেন,”পাবনা টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ সহ বুটেক্স অধিভুক্ত ৭ টি টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের শিক্ষার্থীদের করোনা পরিস্থিতির কারণে শিক্ষাজীবন থেকে একটি অতি মূল্যবান একটি বছর নষ্ট হয়ে গিয়েছে,আরো একটি বছর নষ্ট হবার পথে। যেখানে দেশের অন্য সকল বিশ্ববিদ্যালয় সেশন জট নিরসনে দ্রুত সময়ে পরীক্ষা সম্পন্ন করছে,একাধিক সেমিস্টার এক্সামের রুটিন প্রকাশ করছে,সেখানে আমাদের বুটেক্স অধিভুক্ত টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজসমূহের অনলাইনে সম্পন্নকৃত সেমিস্টার গত ৫ মাসে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকা সত্ত্বেও শেষ হয়নি। একাডেমিক বিষয়ে আমাদের কলেজগুলোর প্রশাসন,বুটেক্স প্রশাসন এবং পাট ও বস্ত্র মন্ত্রণালয়ের চরম সমন্বয়হীনতা ও উদাসীনতা আমাদের শিক্ষাজীবনকে আরো সংকীর্ণ করছে।এমতাবস্থায় বুটেক্স অধিভুক্ত সকল টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ উদ্ভুত সমস্যা নিরসনে সম্মিলিতভাবে মানববন্ধন এবং অবস্থান কর্মসূচী পালন করছি।

বুটেক্স অধিভুক্ত জোরারগঞ্জ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষার্থীর “টেক্সটাইল মিরর”কে জানান, বুটেক্স অধিভুক্ত হওয়ার আগে টেক্সটাইল কলেজ গুলো সেশনজট ছাড়া খুব ভালোই চলছিলো। এখন বুটেক্স অধিভুক্ত হওয়ায় কোন একটা সিদ্ধান্ত নিতে, পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতে এবং পরীক্ষার ফল প্রকাশে অনেক সময় লেগে যায়। ফলস্বরূপ টেক্সটাইল কলেজগুলো সেশনজটের উপর দিয়ে যাচ্ছে। ” তিনি আরো বলেন,
বুটেক্স প্রশাসন নিজেদের শিক্ষার্থীদের একাডেমিক কার্যক্রম চালাতে হিমশিম খাচ্ছে, সেখানে অধিভুক্ত কলেজগুলোর একাডেমিক কার্যক্রমের কথা কি বলবো!”

পাচঁ দফা দাবীসমূহঃ-
১. করোনা মহামারী চলাকালীন সময়ে যে সেমিস্টার লস হয়েছে তা পুষিয়ে নিতে চার মাসে সেমিস্টার করে দ্রুত রিকোভারি প্লান দিতে হবে।
২. রেজাল্ট, রুটিন ও অন্যান্য কার্যক্রম দ্রুত প্রকাশ করতে হবে।
৩. ২য় ও ৩য় বর্ষের শিক্ষার্থীদের জুলাই এর মধ্যেই লেভেল ০২ টার্ম ০২ এবং লেভেল ০৩ টার্ম ০২ এর ফাইনাল পরিক্ষা শেষ করতে হবে।
৪. সেমিস্টারের রেজাল্ট প্রকাশিত করার পরপরেই মার্কশিট প্রদান করতে হবে যাতে পরিক্ষার্থীরা ইমপ্রুভমেন্ট পরিক্ষা দিতে পারে এবং প্রতি সাব্জেক্টে ইমপ্রুভমেন্ট পরিক্ষা ও রিটেক পরিক্ষার ফি অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয় এর সাথে সামঞ্জস্য রেখে ২০০-৩০০ টাকায় নিয়ে আসতে হবে।
৫.সব কলেজের অধ্যক্ষসহ একজন করে শিক্ষক প্রতিনিধি নিয়ে একটি স্বতন্ত্র বোর্ড গঠন করতে হবে, যাতে কলেজগুলোর পরিক্ষার সময়সূচী, রেজাল্ট, মার্কশীট ও অন্যান্য বিষয়ে বোর্ড দ্রুত এবং কার্যকর ও চূড়ান্ত পদক্ষেপ নিতে তৃতীয় কোনো পক্ষের নগ্ন হস্তক্ষেপ না থাকে।
এই দাবি-দাওয়াগুলোর ভিত্তিতে আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে অফিসিয়ালি মিটিং করে এজেন্ডা ও মিটিং পরবর্তী কার্যকর পদক্ষেপসমূহ স্মারক নং সহ বিজ্ঞপ্তি আকারে দ্রুত ডট(DOT) এর ওয়েবসাইটে প্রকাশিত করতে হবে।

ছড়িয়ে দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ Textilemirrorbd.com
Built with ❤ by Minhaz